শ্রমিকদের বিক্রি করে টাকার পাহাড়ে অসাধু শ্রমিক নেতারা

নিজস্ব প্রতিবেদক : অজানা কারণে একসময় ধ্বংস হয়েছিল পাট ও তাঁত শিল্প। সব প্রতিকুলতা কাটিয়ে আজ যখন পোশাক শিল্প নির্ভর এই বাংলাদেশ, তখন এই শিল্পকে ধ্বংস করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে একটি কুচক্রী মহল। ট্রেড ইউনিয়নের রেজিস্ট্রেশন নিয়ে কিছু অসাধু নেতা এই খাত থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে কোটি কোটি টাকা। যার প্রভাব পরছে খেটে খাওয়া শ্রমিক তথা পোশাক শিল্পের ওপর।

শিল্পাঞ্চল সাভার ও আশুলিয়ায় নামি-বেনামি এমন নেতা ও শ্রমিক সংগঠনের অভাব নেই। বেশির ভাগ শ্রমিক সংগঠন শ্রমিকদের স্বার্থ নিয়ে কাজ করার বিপরীতে শ্রমিকদের বিপদের দিকে ঢেলে দিচ্ছেন। নিরীহ শ্রমিকদের ট্রেড ইউনিয়নের নামে বিক্রি করে কারখানা মালিকের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছেন কোটি কোটি টাকা। হুমকির মুখে ঠেলে দিচ্ছে এই পোশাক খাতকে।

সাভারের আশুলিয়ায় এরকম অনেক সংগঠন ও নেতার খোঁজ মিলেছে। যার মধ্যে বাংলাদেশ তৃণমুল গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি শামীম খাঁন অন্যতম। তাদের বিরুদ্ধে কারখানায় ট্রেড ইউনিয়ন প্রতিষ্ঠার নামে শ্রমিকসহ কারখানা মালিকদের জিম্মি করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত কয়েকদিনের অনুসন্ধানে জানা গেছে, শামিম খাঁন প্রথমে একটি পোশাক কারখানা নির্বাচন করেন। পরে ওই কারখানার কিছু শ্রমিকের পরিচয় পত্রের ফটোকপি কৌশলে সংগ্রহ করেন। কাগজ-পত্র প্রস্তুত করে কারখানায় ট্রেড ইউনিয়নের অনুমতির জন্য শ্রম অধিদপ্তরে জমা দেন শ্রমিক নেতা শামিম খাঁন। পরে কারখানা মালিকদের সাথে কথা বলে ট্রেড ইউনিয়ন না করার শর্তে মোটা অঙ্কের চাঁদা দাবি করেন মালিক পক্ষের কাছে। কোন শ্রমিকরা ট্রেড ইউনিয়ন করতে চায় তার ডকুমেন্টস দেওয়ার শর্তে কারখানা মালিক চাঁদার টাকা পরিশোধ করেন। এভাবেই প্রায় অর্ধশতাধিক কারখানা মালিকের কাছ থেকে হাতিয়ে নিয়েছেন কোটি টাকা। শুধু তিনি নন আরও কয়েকজন শ্রমিক নেতা আছে যারা এ টাকায় বাড়ি-গাড়ি কিনে বিলাসবহুল চলাফেরা করছে।

এদিকে কোনো এক অজানা কারণে কারখানায় ট্রেড ইউনিয়ন প্রতিষ্ঠার বিপক্ষে কারখানা মালিকরা। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে একটি সিন্ডিকেট গড়ে, দিনের পর দিন এই অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।
কারখানা মালিকরা ট্রেড ইউনিয়নের কাগজপত্রে যে শ্রমিকদের নাম পাচ্ছেন তাদের ছাটাই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ছাটাই করে দিচ্ছেন।

আর এ ছাটাইকে কেন্দ্র করে শুরু হয় আন্দোলন ও অসন্তোষ। কোন কোন সময় আন্দোলনের মুখে শ্রম আইনের ১৩(১) ধারায় কারখানা বন্ধ রাখতে বাধ্য হন কারখানা মালিকরা। তবে শ্রমকিরা জানতেও পারে না তাদের কি কারণে ছাটাই করা হলো। কারণ তাদের পরিচয়পত্র কৌশলে সংগ্রহ করা হয়। এভাবে একদিকে যেমন অসাধু চক্র ও শ্রমিক নেতা হাতিয়ে নেয় কোটি কোটি টাকা। অন্যদিকে চাকরি হারায় কিছু নিরীহ শ্রমিক। সেই সাথে অস্থিতিশীলতা নেমে আসে পোশাক শিল্পে।

গত ৮ সেপ্টেম্বরে আশুলিয়ার ইএসকেই কারখানায় ট্রেড ইউনিয়নের কারণে চাকরি হারায় পোশাক শ্রমিক সেলিনা। গত মাস থেকে কোথাও চাকরি পাননি তিনি। অভাবের সংসারে চাকরিটাই ছিলো সেলিনার পরিবারের মূল চালনা শক্তি। সেলিনা জানায়, তারা ৩০ জন মিলে একটি ফোডারেশনের মাধ্যমে ট্রেড ইউনিয়নের কমিটি জমা দেন। এর কয়েকদিন পরেই তাদের সেই ৩০ জন শ্রমিককে বিনা নোটিশে ছাটাই প্রক্রিয়ার মধ্যে ফেলে ছাটায় করে দেওয়া হয়।

তিনি বলেন, কারখানা থেকে ছাটাই করে দেওয়ার পর। সেই সময় আমরা সব শ্রমিকরা মিলে ছাটাই শ্রমিকদের কাজে ফেরানোর জন্য আন্দোলন করেছিলাম। তখন সেই ফোডারেশনে কেউ আমাদের সহযোগিতা করেনি। পরে একটা সময় জানতে পারলাম কারখানা মালিক ও শ্রমিক নেতাদের সমঝোতার মাধ্যমে কয়েক লাখ টাকা নেন শ্রমিক নেতারা। সেই সাথে সেই ট্রেড ইউনিয়নের লিষ্টে যাদের নাম আছে তাদেরকে ছাটাই করা হয়।

এ ব্যাপারে ডেবনিয়র কারখানার মালিক আইয়ুব খান বলেন, আমাদের কারখানায় ট্রেড ইউনিয়নের নামে অনেক শ্রমিক নেতাই টাকা খেয়েছেন। তার মধ্যে শামীম খানও ট্রেড ইউনিয়ন জমা দিয়েছিলেন। কোনো কারণে তার ট্রেড ইউনিয়নটি বাতিল হয়ে গেছে। পবর্তীতে এক সময় আমাদের কারখানায় ট্রেড ইউনিয়ন করেছি। বর্তমানে আমাদের কারখানা সুন্দর ভাবে পরিচালিত হচ্ছে। আজ কাল কিছু কিছু অসাধু শ্রমিক নেতা আমাদের কর্মকর্তার কাছ থেকে ট্রেড ইউনিয়নের নামে টাকা নেওয়ার পায়তারা করছে। তাদেরকে ধরে ধরে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করলে কারখানায় স্থিতিশিলতা বজায় থাকবে। হয়তো অনেক কারখানার মালিকরা ট্রেড ইউনিয়ন চান না কিন্তু ট্রেড ইউনিয়ন করলে কারখানা শ্রমিকরাসহ সবাই সুন্দর ভাবে কাজ করতে পারে।

বিষয়টি নিয়ে গার্মেন্টস শ্রমিক সমন্বয় পরিষদের সদস্য সচিব বদরুদ্দোজা নিজাম বলেন, এই সিন্ডিকেটে আছে কিছু ভুয়া শ্রমিক নেতা, রেজিস্টার ট্রেড ইউনিয়নের কিছু অসাধু কর্মকর্তা ও বিজিএমইএ’র লেবার সেলের কিছু অসাধু কর্মকর্তা। তারা ভুয়া কাগজপত্র দিয়ে ট্রেড ইউনিয়ন রেজিস্ট্রেশনের জন্য আবেদন করে। এর পর নির্ধারিত অধিদপ্তর থেকে কারখানা মালিকদের একটি চিঠি পাঠানো হয়। পরবর্তীতে শ্রমিক নেতা, মালিক পক্ষ ও রেজিস্টার ট্রেড ইউনিয়নের কর্মকর্তা ওই কারখানায় ট্রেড ইউনিয়ন না করার শর্তে সমঝোতায় আসে। মালিকরাও চায় না যে তাদের কারখানায় ট্রেড ইউনিয়ন হোক। এর পর কিছু নিরীহ শ্রমিক চাকরীচ্যুত হয়। বিষয়টি নিয়ে আমি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রানালয়ে চিঠি পাঠিয়েছিলাম কিন্তু কোন কাজ হয়নি। খোজ নিয়ে জানা যায় এই সব শ্রমিক নেতারা শ্রমিকদের নিয়ে কাজ করে না। তারা শুধু সিন্ডিকেট তৈরি করে টাকা উপার্জন করে। এই শ্রমিক নেতারাই গার্মেন্ট শিল্পকে নাজুক অবস্থায় নিয়ে গেছেন। এই প্রক্রিয়ায় টাকা উপার্জনের জন্য অসাধু শ্রমিক নেতারা বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করছেন।

বিষয়টি অস্বীকার করে শামীম খান বলেন, আমাদের তো বেতন নেই, আমরা চলবো কিভাবে। শ্রমিকদের নিয়ে কাজ করবো কিভাবে। এই অভিযোগের ব্যপারে তিনি বলেন, কারখানার মালিক, শ্রমিক সংগঠনের নেতারাসহ সবাই আমার উপর ঈর্শান্বিত হয়েই এই অভিযোগগুলো করছে৷

এ ব্যাপারে শিল্প পুলিশ-১ এর পুলিশ সুপার (এসপি) সানা শামীনুর রহমান বলেন, এ ধরনের ঘটনা যদি ঘটে থাকলে বিষয়টি দুঃখজনক। বিষয়টি তদন্ত করে প্রমান হলে সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে জানিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এস আর/জামালপুর লাইভ

এই বিভাগের আরো খবর

আগামীকাল ৫০টি মডেল মসজিদ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

ডেস্ক নিউজ : ‘মুজিব বর্ষ’ উপলক্ষে, ধর্মীয় ভূল-ব্যাখ্যা দূর করে ইসলামের সঠিক বার্তা সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে ১০ জুন একযোগে সারা দেশে...

ময়মনসিংহের নয়া বিভাগীয় কমিশনারের যোগদান

ডেস্ক নিউজ : প্রশাসন ক্যাডারের সুদক্ষ ও চৌকস কর্মকর্তা নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (বন্দর) মোঃ শফিকুর রেজা বিশ্বাসকে ময়মনসিংহ বিভাগের পঞ্চম বিভাগীয় কমিশনার...

একনেকে ৬৬৫১ কোটি টাকার ১০ প্রকল্প অনুমোদন

ডেস্ক নিউজ  :  প্রায় ৬ হাজার ৬৫১ কোটি ৩৪ লাখ টাকা ব্যয়ে ১০টি প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ (একনেক)। মঙ্গলবার (০৮ জুন) প্রধানমন্ত্রী...

জনপ্রিয় সংবাদ

জামালপুরে হত দরিদ্রদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ ও বৃক্ষ রোপণ

মেহেদী হাসান,নিজস্ব প্রতিবেদক : জামালপুর পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব ছানোয়ার হোসেন ছানু এর উদ্যোগে পৌরসভার নাইট রিক্সা চালক, নৈশ...

সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিদিন টিকা পাওয়ার ব্যাপারে আশার বাণী শোনানো হচ্ছে

মেহেদী হাসান,নিজস্ব প্রতিবেদক : জাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক মোস্তফা আল মাহমুদ বলেন, আন্তর্জাতিক টিকা কূটনীতিতে সাফল্য পাচ্ছে না বাংলাদেশ।...

সৌদির বাইরে থেকে এবারো হজে যেতে পারবেন না কেউ

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে বাংলাদেশে থেকে এবারো কেউ হজে যেতে পারেন না বলে জানিয়েছে সৌদি আরব সরকার। তবে দেশটিতে অবস্থানরত মুসলমানরাই কেবল হজ পালন করতে...

বকশীগঞ্জে ভিক্ষুক পুনর্বাসনের লক্ষ্যে ছাগল বিতরণ

রকিবুল হাসান, বকশীগঞ্জ(জামালপুর)প্রতিনিধি : জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলাকে ভিক্ষুক মুক্ত করার লক্ষ্যে ভিক্ষুক পুনর্বাসন ও বিকল্প কর্মসংস্থান শীর্ষক কর্মসূচির আওতায় ৯ জন ভিক্ষুকের মাঝে দুটি...