Archives

জাতীয়নির্বাচিত সংবাদ

এক নজরে জেনে নিন পদ্মা সেতুর গল্প

এক নজরে জেনে নিন পদ্মা সেতুর গল্প

ডেস্ক নিউজ : বিশাল কর্মযজ্ঞের পেছনে রয়েছে বহু চ্যালেঞ্জ আর বাধা-বিপত্তির গল্প। পাঠকের জন্য পদ্মা সেতু সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত কিছু তথ্য তুলে ধরা হলো যা অনেকেই হয়তো জানেন না ।

দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় অবকাঠামো প্রকল্প পদ্মা সেতুর ৪১তম ও শেষ স্প্যানটি ১০ ডিসেম্বর বসানো হয়েছে। এর মাধ্যমে সেতুর মূল কাঠামো ৬.৫ কিলোমিটার দৃশ্যমান হয়েছে।

এরপরের ধাপে সেতুর ওপর সড়ক ও রেলের স্ল্যাব বসানোর কাজ শুরু হবে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেছেন, ২০২২ সালের জুন মাসে পদ্মা সেতু যান চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হবে।

তবে এই বিশাল কর্মযজ্ঞের পেছনে রয়েছে বহু চ্যালেঞ্জ আর বাধা-বিপত্তির গল্প। পাঠকের জন্য পদ্মা সেতু সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত কিছু তথ্য তুলে ধরা হলো যা অনেকেই হয়তো জানেন না।

পদ্মা সেতুর প্রকল্পের নাম- পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্প।

পদ্মা সেতুর দৈর্ঘ্য- ৬.১৫ কিলোমিটার, তবে ডাঙার অংশ ধরলে এর দৈর্ঘ্য দাঁড়ায় প্রায় ৯ কিলোমিটার।

পদ্মা সেতুর প্রস্থ- চার লেন সড়কের সেতুটির প্রস্থ ৭২ ফুট।

পদ্মা সেতুতে রেললাইন স্থাপন করা হবে- নিচ তলায়।

সেতুতে রেলপথ সংযুক্তির সিদ্ধান্ত হয়- ২০১১ সালের ১১ জানুয়ারি।

পদ্মা সেতুর ভায়াডাক্টের দৈর্ঘ্য- ৩.১৮ কিলোমিটার।

পদ্মা সেতু প্রকল্পে নদীশাসন দুই প্রান্তে- ১২ কিলোমিটার।

পদ্মা সেতুর সংযোগ সড়কের দৈর্ঘ্য- দুই প্রান্তে ১৪ কিলোমিটার।

পদ্মা সেতু প্রকল্পে মোট ব্যয়- মোট খরচ করা হচ্ছে ৩০ হাজার ১৯৩.৩৯ কোটি টাকা।

৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত ব্যয় করা হয়েছে- ২৪ হাজার ১১৫.০২ কোটি টাকা।

পদ্মা সেতু প্রকল্পে নদীশাসন ব্যয়- ৮ হাজার ৭০৭ কোটি ৮১ লাখ টাকা।

পদ্মা সেতুর ভায়াডাক্ট পিলার- ৮১টি।

পদ্মা সেতুর পাইলিং গভীরতা- ৩৮৩ ফুট।

পানির স্তর থেকে পদ্মা সেতুর উচ্চতা- ৬০ ফুট।

প্রতি পিলারের জন্য পাইলিং- ৬টি।

পদ্মা সেতুর মোট পাইলিং সংখ্যা- ২৬৪টি।

পদ্মা সেতুর পিলার সংখ্যা- ৪২টি।

পদ্মা সেতুতে রেল ছাড়াও আরও রয়েছে- গ্যাস, বিদ্যুৎ ও অপটিক্যাল ফাইবার লাইন পরিবহন সুবিধা।

পদ্মা সেতুর নির্মাণ সামগ্রী- কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে

পদ্মা সেতু প্রকল্পে চুক্তিবদ্ধ কোম্পানির নাম- চায়না মেজর ব্রিজ কোম্পানি।

পদ্মা সেতু রাজধানী ঢাকার সাথে সংযোগ স্থাপন করবে- দেশের দক্ষিণাঞ্চলের ২১টি জেলার।

পদ্মা সেতু সংযোগ স্থাপন করেছে- মুন্সিগঞ্জের মাওয়ায় ‍ও শরীয়তপুরের জাজিরায়।

সেতু প্রকল্পে বিশ্বব্যাংকের সাথে ঋণ চুক্তি হয়েছিল- ১২০ কোটি ডলারের।

২০১৬-১৭ সালে সেতু প্রকল্পে পরামর্শক নিয়োগে দুর্নীতির আভিযোগ ওঠায় ঋণচুক্তি প্রত্যাহার করে- বিশ্বব্যাংক, এডিবি ও জাইকা।

পদ্মা সেতুর কাজ শুরু হয়- ৭ ডিসেম্বর ২০১৪ সালে।

পদ্মা সেতুর প্রথম স্প্যান বসানো হয়- ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর।

সূত্র – ঢাকা ট্রিবিউন

বার্তা সম্পাদক
%d bloggers like this: